বিশ্বকাপ ফুটবল 2018 রচনা | বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮ প্রবন্ধ রচনা


বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

ভূমিকা :

১৫ জুলাই, ২০১৮ শেষ হলাে একুশতম ফিফা বিশ্বকাপের আসর—যা নানা অঘটনের স্মারক হয়ে থাকলাে। বিশ্বায়নের সুবাদে কৃষি, শিল্প, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খেলাধুলা এমনকি মানুষে মানুষে সম্পর্কের বন্ধন সবই বাজার বা মার্কেট কেন্দ্রিক।

প্রতিযােগিতার মাধ্যমে এই বাজার-ই ঠিক করে দেবে কোন্ কোন ‘কমােডিটি’-র কতখানি মূল্য। সেই নিরিখে বিশ্বকাপ ফুটবলের বাজারমূল্য যথেষ্ট। এবার রাশিয়া-তে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে বিজয়ী হয়েছে ফ্রান্স এবং রানার্স হয়েছে ক্রোয়েশিয়া।

ইতিহাস :

১৯৩০ খ্রিস্টাব্দে ফিফার দ্বিতীয় প্রেসিডেন্ট জুলে রিমে-এর আন্তরিক প্রচেষ্টায় বিশ্বকাপ ফুটবল চালু হয়—যা তখন জুলে রিমে কাপ নামে প্রচলিত ছিল। প্রথম বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়ােজক দেশ ছিল উরুগুয়ে।

উরুগুয়েই আর্জেন্টিনাকে ৪-২ গােলে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জেতে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে চার বছর অন্তর এই প্রতিযােগিতার আসর বসে।

এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত একুশটি প্রতিযােগিতায় বিজয়ীর সম্মান অর্জন করেছে ব্রাজিল পাঁচবার (১৯৫৮, ১৯৬২, ১৯৭০, ১৯৯৪, ২০০২), ইতালি চারবার (১৯৩৪, ১৯৩৮, ১৯৮২, ২০০৬), জার্মানি চারবার (১৯৫৪, ১৯৭৪, ১৯৯০, ২০১৪), আর্জেন্টিনা দুবার (১৯৭৮, ১৯৮৬), উরুগুয়ে দুবার (১৯৩০, ১৯৫০), ফ্রান্স দুবার (১৯৯৮, ২০১৮) এবং ইংল্যান্ড (১৯৬৬), স্পেন (২০১০) একবার করে।

গতবারের বিশ্বকাপ :

গতবারের (২০১৪) বিশ্বকাপের আসর বসেছিল ব্রাজিলে এবং জার্মানির হাতে গিয়েছিল বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপের আসরের আনন্দে আয়ােজক দেশ ব্রাজিলের আনন্দে তাদের দারিদ্র্য ঢাকা পড়ে গিয়েছিল, এবং সেমিফাইনালে জার্মানির কাছে হেরে গিয়ে শেষপর্যন্ত চতুর্থ স্থান অর্জন করেছিল।

গতবারের মেসির দল আর্জেন্টিনা নেদারল্যান্ডস-কে হারিয়ে রানার্স হয়েছিল। শ্রেষ্ঠ খেলােয়াড় হয়েছিলেন মেসি, সর্বোচ্চ গােলদাতা ছিলেন কলম্বিয়ার হাসেম রডরিগেজ।

২০১৮ বিশ্বকাপ :

১৪ জুন থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত এবারের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল রাশিয়াতে এবং ৩২টি দল অংশগ্রহণ করেছিল। আয়ােজক দেশ হিসেবে রাশিয়া বাছাই পর্বে উত্তীর্ণ হয়ে খেলতে এসেছিল।

আইসল্যান্ড ও পানামা এই বিশ্বকাপে প্রথমবার অংশগ্রহণ করেছিল। রাশিয়ার ১১টি শহরের ১২টি স্টেডিয়ামে ৬৪টি ম্যাচ আয়ােজিত হয়েছিল। ৩২টি দেশ আটটি গ্রুপে বিভক্ত হয়েছিল।

গ্রুপ-এ-তে ছিল—উরুগুয়ে, রাশিয়া, সৌদি আরব, মিশর এবং উরুগুয়ে তিনটে খেলায় জয়লাভ করে গ্রুপ শীর্ষে থাকে। গ্রুপ-বি-তে ছিল স্পেন, পর্তুগাল, ইরান, মরক্কো এবং ১টিতে জয়লাভ করে দুটিতে ড্র করে স্পেন গ্রুপ শীর্ষে থাকে।

গ্রুপ-সি-তে ছিল ফ্রান্স, ডেনমার্ক, পেরু ও অস্ট্রেলিয়া এবং ২টিতে জয়লাভ করে ও ১টি ড্র করে গ্রুপ শীর্ষে থাকে ফ্রান্স। গ্রুপ ডি-তে ছিল ক্রোয়েশিয়া, আর্জেন্টিনা, নাইজেরিয়া ও আইসল্যান্ড এবং ক্রোয়েশিয়া ৩টি খেলায় জয়লাভ করে গ্রুপ শীর্ষে থাকে।

গ্রুপ-ই-তে ছিল ব্রাজিল, সুইজারল্যান্ড, সার্বিয়া, কোস্টারিকা এবং ২টিতে জয়লাভ করে ও ১টিতে ড্র করে ব্রাজিল ছিল গ্রুপ শীর্ষে।

গ্রুপ এফ-এ ছিল সুইডেন, মেক্সিকো, দক্ষিণ কোরিয়া ও জার্মানি এবং সুইডেন ২টিতে জয়লাভ করে ও একটিতে হেরে গ্রুপ শীর্ষে থাকে ও গতবারের বিজয়ী জার্মানি গ্রুপের সর্বনিম্নে থেকে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়।

গ্রুপ-জি-তে ছিল বেলজিয়াম, ইংল্যান্ড, তিউনিসিয়া ও পানামা এবং গ্রুপ শীর্ষে বেলজিয়াম ৩টিতে জয়লাভ করে চমক লাগিয়ে দেয়।

গ্রুপ এইচ-এ ছিল কলম্বিয়া, জাপান, সেনেগাল ও পােল্যান্ড এবং কলম্বিয়া ২টিতে জয়লাভ করে ও ১টিতে পরাজিত হয়ে গ্রুপ শীর্ষে থাকে।

কোয়ার্টার ফাইনাল :

কোয়ার্টার ফাইন্যালে যাওয়ার পূর্বে উরুগুয়ে পর্তুগাল (২-১)-কে, ফ্রান্স আর্জেন্টিনা-কে (৪-৩), ব্রাজিল মেক্সিকো-কে (২-০), বেলজিয়াম জাপান-কে (৩-২), রাশিয়া স্পেন-কে (৪-৩), ক্রোয়েশিয়া ডেনমার্ক-কে (৩-২), সুইডেন সুইজারল্যান্ডকে (১-০) এবং ইংল্যান্ড কলম্বিয়া-কে (৪-৩) হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইন্যাল পর্বে উত্তীর্ণ হয়। কোয়ার্টার ফাইন্যাল-এর প্রথম খেলায় ফ্রান্স উরুগুয়ে-কে (২-০), বেলজিয়াম ব্রাজিল-কে (২-১), ইংল্যান্ড সুইডেন-কে (২-০), ক্রোয়েশিয়া রাশিয়াকে ট্রাইব্রেকারে ৪-৩ গােলে হারিয়ে সেমিফাইনালে যাওয়া সুনিশ্চিত করে।

সেমিফাইন্যাল :

প্রথম সেমিফাইনাল খেলা হয় ১০ জুলাই ফ্রান্স ও বেলজিয়ামের মধ্যে ক্লেভস্কি স্টেডিয়ামে (সেন্ট পিটার্সবার্গ) এবং ফ্রান্স ১-০ গােলে বেলজিয়াম-কে হারায়। ফ্রান্সের হয়ে গােল করেন উমতিতি।

১১ জুলাই অপর সেমিফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া এবং খেলাটি অনুষ্ঠিত হয় মস্কো-র লুঝনিকি স্টেডিয়ামে এবং ক্রোয়েশিয়া ২-১ গােলে ইংল্যান্ডকে হারায়।

ক্রোয়েশিয়ার পক্ষে গােল দুটি করেন পেরিশিচ ও মান্দজুকিচ এবং ইংল্যান্ডের হয়ে গােল করেন ট্রিপিয়ার। আবার তৃতীয় স্থান নির্ধারণী খেলায় বেলজিয়াম ইংল্যান্ডকে ২-০ গােলে হারিয়ে তৃতীয় স্থান দখল করে।

ফাইন্যাল :

১৫ জুলাই মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে ফাইন্যাল খেলা অনুষ্ঠিত হয় ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়ার সঙ্গে, যেখানে দর্শক সংখ্যা ছিল ৭৮,০১১ এবং রেফারি ছিলেন আর্জেন্টিনার নেস্তর পিতানা।

গতি ও বুদ্ধির কৌশলে ফ্রান্স ৪-২ গােলে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে এবারের বিশ্বখেতাব অর্জন করে। ফ্রান্সের পক্ষে গােলদাতারা হলেন—মান্দজুকিচ, গ্রিয়েজম্যান (পেনাল্টি থেকে), পােবা ও এমবাপে। অন্যদিকে মান্দজুকিচ-এর একটি আত্মঘাতী গােল ছাড়া ক্রোয়েশিয়ার পক্ষে গােল করেন পেরিশিচ।

রেকর্ড :

(১) এই বিশ্বকাপে বেলজিয়াম ভাল খেলে দর্শকদের নজর কেড়েছে।

(২) গতবারের বিজয়ী দল জার্মানি প্রথমেই বিদায় নিয়েছে। বিদায় নিয়েছে মেসি-র আর্জেন্টিনা।

(৩) বারটি আত্মঘাতী গােল হয়েছে।

(৪) হ্যারি কেন সর্বাধিক ৬টি গােল করে গােল্ডেন বুট পায়।

(৫) গােল্ডেন বল পেয়েছেন লুকা মাদ্রিচ, সিলভার বল পেয়েছেন এদেন। আজার, ব্রোঞ্জ বল পেয়েছেন অঁতােয়ান গ্রিয়েজমান, সিলভার বুট পেয়েছেন আঁতােয়ান গ্রিয়েজম্যান, ব্রোঞ্জ বুট পেয়েছেন রােমেলু লুকাকু, গােল্ডেন গ্লাভস পেয়েছেন থিবাে কোর্তোয়া, সেরা তরুণ খেলােয়াড় হলেন ফিলিয়ান এমবাপে, ফিফা ফেয়ার প্লে পুরস্কার পেয়েছে স্পেন।

(৬) চ্যাম্পিয়ান দল ৩ কোটি ৮০ লক্ষ মার্কিন ডলার অর্থমূল্য পেয়েছে।

উপসংহার :

এবারের বিশ্বকাপে সন্ত্রাসবাদী আই এস আই এস-এর হুমকি সত্ত্বেও ফুটবল প্রেমীদের কাছে এই বিশ্বকাপ নানা কারণে স্মরণীয় হয়ে থাকল। ২২তম ফিফা বিশ্বকাপের আসর বসবে ২০২২ সালে কাতারে। আবার নতুন প্রতিভার সাক্ষর ও রেকর্ড সৃষ্টি হবে এবং এভাবেই অসংখ্য ফুটবল প্রেমীদের কাছে বিশ্বকাপ ফুটবল আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে দেশে দেশে বন্ধুত্ব ও সৌহার্দ্যের হাত প্রসারিত করে দেবে—এই প্রত্যাশা আমাদের থাকবে।



error: Content is protected !!