“আমাদের সমস্ত ঘটনাটা সােনালেন’ -(CLASS 12 BENGALI SUB QNA)

রচনাধর্মী প্রশ্নোত্তর (কমবেশি ১৫০টি শব্দে) : মান-5

“আমাদের সমস্ত ঘটনাটা সােনালেন’ — বক্তা কে? ‘পাঞ্জাসাহেবে পোঁছে এক আশ্চর্য ঘটনার কথা জানতে পারি। ‘— ঘটনাটি কে শুনিয়েছিলেন ঘটনাটির বর্ণনা দাও। ১+৪

  উ: বিশ শতকের এক ক্রান্তি লগ্নের কথাকার কর্তার সিং দুগগাল রচিত ‘অলৌকিক’ গল্প থেকে গৃহীত প্রশ্নোদ্ধৃত অংশে ঘটনাটি শুনিয়েছিল গল্পগথকের মায়ের বান্ধবী। পাঞ্জাসাহেবে সাকাকে কেন্দ্র করে আশ্চর্য এক ঘটনা ঘটেছিল। ঘটনাটি হল, দুরের এক শহরের ফিরিঙ্গিরা নিরস্ত্র স্বাধীনতা আন্দোলনকারীদের ওপর নির্মমভাবে গুলি চালায়। আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা কেউ বাদ যায়নি মৃতদের মধ্যে।

যাঁরা বেঁচে আছেন তাঁদের কয়েদ করে দূরে জেলে পাঠানাের হুকুম হয়েছে। তাঁরা খিদে ও তেষ্টায় মরণাপন্ন। অথচ তাঁদের নিয়ে যাওয়ার জন্য ট্রেন কোনাে স্টেশনে থামবে না। এই খবর শােনামাত্র পাঞ্জাসাহেবের লােকজন খুবই উত্তেজিত হয়ে পড়ে। পাঞ্জাসাহেবেই গুরু নানাক তৃষ্ণার্ত মর্দানাকে জল পান করিয়ে বাঁচিয়েছিলেন। অথচ সেই পাঞ্জাসাবেহের ওপর দিয়ে খিদে ও তেষ্টায় কাতর স্বাধীনতা সংগ্রামীদের কাছে খাবার ও জল পৌছে দেওয়ার জন্য ট্রেন পাঞ্জাসাহেব স্টেশনে দাঁড়াবে না, এ হতে পারে না।

অনেক আবেদন করেও সরকারের অনুমতি মেলেনি। তাই সাকা করার সিদ্ধান্ত নিয়ে খাবার – ও জলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। গল্পশ্রোতার মায়ের বান্ধবীর স্বামী ও তাঁর সঙ্গীরা চলন্ত ট্রেন থামানাের জন্য রেললাইনে শুয়ে পড়েন। তাঁদের পিছনে একইভাবে শুয়ে পড়েন বান্ধবী তাঁর ছেলেপুলে নিয়ে। তাঁদের অন্তরে জয় নিরঙ্কার ধ্বনি।

ঝড়ের বেগে ধেয়ে আসা গাড়ির গতি ধীরে ধীরে থেমে আসে। গাড়ি সম্পূর্ণ থেমে যায় শুয়ে থাকা বান্ধবীর ঠিক মাথার আগে। ইতিপূর্বে গাড়ির চাকা বান্ধবীর স্বামী ও তাঁর সঙ্গীদের বুকের ওপর দিয়ে চলে গেছে। তাদের বুকের রক্তের স্রোত, খালপাড়ের সেতুর দিকে বয়ে যায়। দেশের স্বাধীনতাকামী সংগ্রামীদের জন্য এই মহান আত্মােৎসর্গ সাকার অন্তর্নিহিত তাৎপর্য। এই আশ্চার্য ঘটনার মধ্যে দিয়ে তাই প্রকাশিত হয়েছে।



Posts not found

close